কিভাবে মেমোরি কার্ড ফরমেট/রিপেয়ার/পাসওয়ার্ড রিমুভ/যত্ন করবেন? সম্পূর্ণ A-Z গাইড।২৪টেকি

কিভাবে মেমোরি কার্ড ফরমেট/রিপেয়ার/পাসওয়ার্ড রিমুভ/যত্ন করবেন? সম্পূর্ণ A-Z গাইড।২৪টেকি

Memory Card কোনটা কিনবেন?

১। মেমোরি কার্ড কেনার পূর্বে দেখে নিন তা আপনার প্রয়োজন পূরণ করতে পারবে কিনা। এইজন্য কত স্পেস আপনার লাগবে সেটা নির্ধারণ করুন। যদি আপনার মেমরিটি ১জিবি হয় তবে এর মধ্যে সর্বোচ্চ ৯৫০মেগাবাইট -১০০০মেগাবাইট পর্যন্ত সাপোর্ট দিতে পারবে।

২। মেমরি কার্ডটির পিছনের অংশ অর্থাৎ যেখানে তামার পাত দেওয়া থাকে সে অংশে যদি মেমরি কার্ডের বিভিন্ন সংযোগ চিহ্ন বোঝা যায় বা আপনার মনে হয় সংযোগগুলো ভাল হয়নি, তবে তা না কেনাই ভাল।

৩। মেমোরি কার্ডের সাধারনত নতুন অবস্থাতেই কোন ওয়ারেন্টি বা গ্যারান্টি থাকে না। তাই পুরাতন না কেনাই ভাল।

৪। মেমোরি কার্ড অবশ্যই ভাল কোম্পানি বা ব্রান্ড দেখে নিবেন। ( Sumsung, Nokia etc… ) দেখে কিনতে হবে।

৫। ডাটা রিডিং ক্যাপাসিটি অবশ্যই দেখে নিবেন। কত MB/Sec স্পিডে ডাটা রিড বা রাইট করতে পারে তা দেখে নিবেন। সবসময় বেশি স্পিডে রিড করে এমন মেমোরি কার্ড কিনবেন। তাতে আপনি যেখানেই ব্যবহার করুন না কেন আপনার মেমরি কার্ডটি স্লো হবে না।

মেমোরি কার্ডের যত্ন ও তার ব্যবহার

১। মাসে অন্তত একবার আপনার মেমোরি কার্ডটি গ্লাস ক্লিনার দিয়ে সংযোগস্থানগুলো ভালভাবে পরিষ্কার করুন। অনেক সময় মোবাইলের হিটে মেমরি কার্ড ঘেমে নষ্ট হতে পারে।

২। কখনো মেমোরি কার্ড পিসিতে ২/৩ বারের বেশি ফরমেট করবেন না। কারন এতে মেমোরি কার্ড নষ্ট হবার ঝুকি থাকে।

৩। প্রয়োজনে মোবাইল দিয়ে মেমরি কার্ড ফরমেট করুন।

৪। মোবাইলে বেশিক্ষন (এক-দুই ঘন্টার বেশী) ভিডিও গান বা ভিডিও চিত্র না দেখাই ভাল। কারন এতে ব্যাটারি এবং মেমরি কার্ডের উপর চাপ পড়ে।

৫। মেমোরি কার্ডকে পেন্ড্রাইভ হিসাবে ব্যবহার না করাই ভাল। আর যদি পেন্ড্রাইভ হিসাবে ব্যবহার করতে চান তাহলে কার্ড রিডার ব্যবহার না করে, মোবাইলের ডাটা কেবল ব্যবহার করুন।

৬। ১জিবি সাপোর্ট করে এমন মোবাইলের জন্য ৫১২মেগাবাইট, ২জিবি সাপোর্ট করে এমন মোবাইলের জন্য ১জিবি, ৪জিবি সাপোর্ট করে এমন মোবাইলের জন্য ২/৩জিবি মেমোরি কার্ড ব্যবহার করা ভাল। এতে মোবাইল ফোন সহজে হ্যাং হয়না এবং ধীরগতি হয় না।

কিভাবে আপনার Memory Card এর পাসওয়ার্ড(Password) বের করবেন এবং মুছে দিবেন?

এই কাজ করার জন্য আপনাকে Xplore নামের একটা ফাইল ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার প্রয়োজন। সফটওয়্যারটি আপনার মোবাইল এ ইন্সটল করুন।

এবার সফটওয়্যারটি ওপেন করুন এবং কিছু সেটিং পরিবর্তন করার জন্য শুন্য (0) চাপুন। একটা কনফিগারেশন মেন্যু আসবে সেখানে “Show the System Files” অপশনে টিক দিয়ে সেভ করুন।

এবার আপনার মেমরি কার্ড এর পাসওয়ার্ড পাওয়ার জন্য “C:/Sys/Data/Mmcstore” লোকেশনে গিয়ে তিন (3) বাটনে চাপ দিন। দেখবেন কি যেন হিজিবিজি লেখা এসে হাজির হয়ে গেছে।

এবার সেখানে ৩ নং কলামে ! TMSD02G (c??”?x???5?5?5?5? এই ধরনের একটা কোড পাবেন এবার এই কোড থেকে প্রশ্নবোধক চিহ্ন (?) বাদ দিয়ে অক্ষরগুলো নিন। যেমন আমার দেয়া কোড গুলো থেকে প্রশ্নবোধক চিহ্ন (?) বাদ হলে “5555 “ পাওয়া যায়। তাহলে পাসোয়ার্ড হল “5555″ icon smile. ভুলে যাওয়া আপনার মোবাইলের মেমরি কার্ড এর পাসওয়ার্ড মুছে দিন। আর যদি আপনি“C:/Sys/Data/Mmcstore” এখানে না যেতে পারেন তাহলে মনে করবেন যে আপনার মেমোরিতে পাসওয়ার্ড দেয়া নাই।




নষ্ট মেমোরি কার্ড ঠিক করবেন যেভাবে

ডেটা রিকভারি সফটওয়্যার ব্যবহার করে নষ্ট মেমরি কার্ড ঠিক করুন

মেমোরি কার্ডের তথ্য দেখা যাচ্ছে, কিন্তু সেটি ব্যবহার করা যাচ্ছে না। এ ক্ষেত্রে ডেটা উপস্থিত থাকে কিন্তু কম্পিউটার বা অন্য যন্ত্র সেটিকে পড়তে (রিড) পারে না। এক্ষেত্রে সবাই ভাবে যে মেমোরি কার্ডটি বোধহয় নষ্ট হয়ে গেছে। কিন্তু না, এমন অবস্থা থেকে রিকভারি সফটওয়্যার মেমোরি কার্ডটাকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে পারে।

আর এ জন্য আপনাকে যা করতে হবেঃ

প্রথমে কার্ড রিডারে মেমোরি কার্ড ঢুকিয়ে নিয়ে কম্পিউটারে সংযোগ দিন। খেয়াল রাখবেন, মেমোরি কার্ড ফাইল এক্সপ্লোরার বা হার্ড ড্রাইভের অন্যান্য ড্রাইভের মতো দেখালে এটিতে প্রবেশ করা যাবে না। এবার আপনার উইন্ডোজ এর স্টার্ট মেন্যুতে সার্চ অপশনে গিয়ে cmd লিখুন। এতে আপনার স্টার্ট মেন্যুর উপর দিকে কমান্ড প্রম্পট (cmd) দেখা যাবে। এখন এর ওপর মাউসের ডান বোতাম চেপে Run as administrator নির্বাচন করে সেটি খুলুন।

কমান্ড প্রম্পট চালু হলে এখানে chkdskmr লিখে enter ক্লিক করুন। এখানে m হচ্ছে মেমোরি কার্ডের ড্রাইভ। কম্পিউটারে কার্ডের ড্রাইভ লেটার যেটি দেখাবে সেটি এখানে লিখে চেক ডিস্কের কাজটি সম্পন্ন হতে দিন। এখানে convertlostchainsto files বার্তা এলে y চাপুন। এ ক্ষেত্রে ফাইল কাঠামো ঠিক থাকলে কার্ডের তথ্য আবার ব্যবহার করা যাবে।

মেমোরি কার্ড যদি invalid filesystem দেখায় তাহলে সেটির ড্রাইভের ডান ক্লিক করে Format-এ ক্লিক করুন। File system থেকে FAT নির্বাচন করে Quick format-এর টিক চিহ্ন তুলে দিয়ে Format-এ ক্লিক করুন। ফরম্যাট সম্পন্ন হলে মেমোরি কার্ডের তথ্য হারালেও কার্ড নষ্ট হবে না।

নষ্ট পেনড্রাইভ ঠিক করার উপায়

Corrupted পেনড্রাইভ, মেমোরি কার্ড কিভাবে ঠিক করা যায়। তো কথা না বাড়িয়ে চলুন কাজে চলে যাই। প্রথমে আপনার উইন্ডোজের START এ ক্লিক করে RUN এ গিয়ে cmd লিখে enter চাপুন।

তারপর Command Prompt চালু হবে। এখন আপনার কম্পিউটারে Corrupted পেনড্রাইভ বা মেমোরি কার্ড লাগান।

১ নং ধাপ – টাইপ করুন একসাথে ( diskpart ) তারপর enter চাপুন।

২ নং ধাপ – আবার টাইপ করুন ( list disk )। এখন আপনার ড্রাইভ শো করবে। দেখুন আপনার Corrupted পেনড্রাইভ, মেমোরির ড্রাইভ কোনটা ।

৩ নং ধাপ – যদি disk 1 বা disk 2 হয় তাহলে যথাক্রমে ( select disk 1 বা select disk 2 ) টাইপ করুন এবং enter চাপুন।

৪ নং ধাপ – এখন ( clean ) লিখে enter প্রেস করুন।

৫ নং ধাপ – টাইপ করুন ( create partition primary ) লিখে enter প্রেস করুন।

৬ নং ধাপ – টাইপ করুন ( active ) লিখে enter প্রেস করুন।

৭ নং ধাপ – টাইপ করুন ( select partition 1 ) লিখে enter প্রেস করুন। ( আপনার ড্রাইভ অনুয়ায়ী 1/2 ইত্যাদি হবে)

৮ নং ধাপ – টাইপ করুন ( format fs=fat32 ) লিখে enter প্রেস করুন। আপনি চাইলে fat32 এর বদলে ntfs ফরমেটে ফরমেট দিতে পারেন। ব্যাস আপনার কাজ শেষ এখন Corrupted পেনড্রাইভ বা মেমোরি ফরমেট হতে থাকবে। 100% হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। 100% হলে Successfully দেখাবে এখন ( exit ) লিখে enter প্রেস করলে Command Prompt বন্ধ হবে । এখন My computer ওপেন করে দেখুন ঠিক হয়ে গেছে।

SD কার্ড রিপেয়ার

আমরা অনেকেই মেমোরি কার্ড কম্পিউটারে ব্যবহার করি। কিন্তু অনেক সময়ই আপনার মেমোরি কার্ডে সমস্যা দেখা দিতে পারে। আপনার মেমোরি কার্ড ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। আপনার মেমোরি কার্ড নিম্নের মেসেজগুলো দেখাতে পারেঃ

***“Unsupported media card inserted, format now?”

“Media is not formatted. Would you like to format now?”

“The SD card cannot be recognized.”

Please insert the drive …

“Access denied”, when SD card is corrupted or broken.”***

আপনার মেমোরি কার্ড যদি এদের মধ্যে কোন এরর মেসেজ দেখায় তাহলে আপনার কার্ড ঠিক করতে হবে। নিচের পদ্ধতিগুলো অর্থাৎ টিপসগুলো দিয়ে আপনি আপনার মেমোরি কার্ড ফিক্স করতে পারেনঃ

টিপস ১:

আপনার মেমোরি কার্ডের এরর চেক করুন। এরর চেক করতে আপনার কার্ডের ড্রাইভে রাইট ক্লিক করে যান Properties > Tools > Check now…

টিপস ২:

আপনি যদি “Card Lock” হওয়ার এরর মেসেজ পান তাহলে আপনি আপনার কার্ডটি রিমুভ করে এটিকে আনলক করুন।

টিপস ৩:

Folder Option এ যান এবং চেক করুন যে “show hidden files and folder“ টিক দেওয়া আছে নাকি। না থাকলে টিক দিন। তারপর command prompt এ যান এবং chkdsk H:\ /r” লিখে এন্টার করুন এবং অপেক্ষা করুন এটি শেষ হওয়া পর্যন্ত। নোট করুন যে আপনার মেমোরি ড্রাইভ যদি G:\ হয় তাহলে লিখুন “chkdsk G:\ /r”।

টিপস ৪:

আপনি যদি মেসেজ পান “Unsupported media card inserted, format now?” তাহলে আপনার মেমোরি কার্ড Format করুন। Memory Card Recovery টুলটি নামিয়ে আপনি আপনার ফরম্যাট করা ফাইলগুলো ফেরত পেতে পারেন।

Error মেসেজ না পাওয়ার জন্য কিছু টিপসঃ

যখন আপনি নতুন এসডি কার্ড বা মেমোরি কার্ড কিনবেন তখন এটি ফরম্যাট করুন

আপনার কার্ড কখনও Directly রিমুভ করবেন না। শুধু ক্লিক করুন “eject” এবং আপনার কার্ডটি রিমুভ করুন।

যখন আপনি আপনার মোবাইল থেকে মেমোরি কার্ড রিমুভ করবেন তার আগে আপনার মোবাইল/ সেলফোন বন্ধ করে নিবেন।

আপনার পেনড্রাইভ পুরোপুরি ভরবেন না। কিছু জায়গা খালি রাখবেন।

সবসময় ভাল ব্রান্ডের মেমোরি কার্ড যেমনঃ SanDisk, Panasonic, Sony, Kingston ইত্যাদি ব্যবহার করুন।

Unformated Memory Card সমস্যার সমাধান

বিভিন্ন কারনে ইউএসবি ডিস্ক (ফ্ল্যাশ ডিস্ক) ফরম্যাট দেয়ার প্রয়োজন পড়ে। কিন্তু অনেক সময় ভাইরাস বা অন্য কারনে ইউএসবি ডিস্ক (পেন ড্রাইভ, মেমরি কার্ড ইত্যাদি) ফরম্যাট নিতে চায় না। তবে নিচের পদ্ধতিগুলোর যে কোন একটি অ্যাপ্লাই করলে ইউএসবি ডিস্ক সহজেই ফরম্যাট হবে।

১) কমান্ড প্রম্পট ব্যবহার করেঃ

এটি পেন ড্রাইভ/ মেমরি কার্ড ফরম্যাট করার সবচেয়ে কার্যকরী পদ্ধতি।

এক্ষেত্রে, যা করতে হবেঃ

প্রথমে Start থেকে Run এ গিয়ে “cmd” লেখাটি টাইপ করে এন্টার দিন।

যে উইন্ডোটি আসবে সেখানে লিখুন ” Format K: “। লক্ষ্য করুন ইউএসবি ডিস্কটি K ড্রাইভ হিসেবে কাজ করছে বলে “Format K:” লেখা হয়েছে।

এন্টার দিন।

একটি উইন্ডো আসবে। এখানে “Y/N” চাইলে “Y” টাইপ করে এন্টার দিয়ে ডিস্কটি পুনরায় নরমালি ফরম্যাট দিয়ে দেখুন ফরম্যাট নিচ্ছে।

২) এনটিএফএস ফরম্যাটঃ

পেন ড্রাইভ/ মেমরি কার্ডকে সাধারনত Fat 32 ফাইল অবস্থায় ফরম্যাট করা হয়। তবে Fat 32 এ সমস্যা হলে ডিস্কটিকে NTFS এ ফরম্যাট করা যায়।

এজন্য My Computer থেকে পেন ড্রাইভ/ মেমরি কার্ড এর উপর ডান বাটন ক্লিক করে Properties> Hardware এ গিয়ে পেন ড্রাইভ/ মেমরি কার্ডটি নির্বাচন করতে হবে।

এরপর Properties> Policies থেকে Optimize for performance নির্বাচন করে ok ক্লিক করতে হবে।

৩) উইন্ডোজের ডিস্ক ম্যানেজমেন্ট বা ডস ফরম্যাট ব্যবহার করেঃ

এক্ষেত্রে Start থেকে Control Panel এ গিয়ে Administrative Tools এ দুই বার ক্লিক করতে হবে। তারপর Computer Management এ দুই বার ক্লিক করতে হবে। এখন বাঁ পাশ থেকে Disk Management এ ক্লিক করলে ডান পাশে পেনড্রাইভ/ মেমরি কার্ডসহ সব কটি ড্রাইভের লিস্ট দেখাবে। সেখান থেকে পেন ড্রাইভ/ মেমরি কার্ড এর উপর মাউস রেখে ডান বাটনে ক্লিক করে ফরম্যাট করলে পেনড্রাইভ ফরম্যাট হবে।

৪) সফটওয়্যার ব্যবহার করেঃ

উপরের কোন পদ্ধতিতে ইউএসবি ডিস্ক ফরম্যাট না হলে HP USB Disk Storage Format Tool সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে দেখতে পারেন। এই টুল দিয়ে ইউএসবি ডিস্ককে ডস স্টার্টআপ ডিস্কও বানানো যাবে। সফটওয়্যারটির ইন্টারফেস অনেক সহজ।



সহজ পদ্ধতিতে এসডি কার্ড ঠিক করুন

নস্ট মেমরি কার্ড ঠিক করা যায়। তাই বলে একবারে ডেড কার্ড মেমরি কার্ড ঠিক করে ফেলবেন তা কিন্তু নয়

তাইলে কোন মেমরি কার্ড ঠিক করবেন? ঠিক করবেন ওইসকল মেমরি কার্ড যে সব মেমরি কার্ড ফরমেট হচ্ছে না। তাহলে নস্ট মেমোরি কার্ড অর্থাৎ (যে কার্ড ফর্মেট হচ্ছে না সেই কার্ড ইউএসবির মাধ্যমে পিসিতে ঢুকান)। তারপর মাই কম্পিউটারে প্রবেশ করে আপনার ইউ এস বি লাগানো ড্রাইভটা চিনে রাখুন (যেমন, f, e, t) এখন মাউস পয়েন্টার মাই কম্পিউটার এর উপর রেখে mange এ যান।

এখন নিচের storage থেকে Disk management এ ক্লিক করুন।

এখন আপনার কাঙ্ক্ষিত মেমরি কার্ড এর ড্রাইভটাতে ক্লিক করুন (যেটাতে ইউএসবি ঢুকিয়েছিলেন)। আবার মাউস এর রাইট বাটন ক্লিক করুন এবং ফরমেট লিখা দেখতে পাবেন এটাতে ক্লিক করুন। এখন ওকে তে ক্লিক করুন। কিছু সময় অপেক্ষা করুন !!! ব্যাস কাজ শেষ। দেখুন ফরমেট হয়ে গেছে।

কেমন লাগলো জানাতে ভুলবেন না যেন…

আরো দেখতে পারেন…

কিভাবে হার্ডডিক্স বিষয়ে এক্সপার্ট হবেন এবং সমস্যা সম্মুখিন করবেন

আপনার ল্যাপটপ কি অনেক হট? তাহলে এই টিপসগুলো আপনার জন্য!

1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (No Ratings Yet)
Loading...
Spread the love

Related posts

Leave a Comment